নিউজিল্যান্ডের ঘটনায় কাঁদলেন জিম ক্যারি

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম:  নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুই মসজিদে হামলার ঘটনায় বিশ্ববাসীর সঙ্গে একাত্ম হলেন হলিউড অভিনেতা জিম ক্যারি। বিশ্বের যেকোনো আলোচিত-সমালোচিত ঘটনার প্রতিবাদ ও নিন্দায় নিজের শিল্পকর্মের মাধ্যমে সক্রিয় হন তিনি। এবারও তা-ই করলেন তিনি। নিজের হৃদয়ের কান্নাভেজা একটি কার্টুন এঁকে পোস্ট করলেন টুইটারে।

নিজের আঁকা নতুন সেই কার্টুনে নিজেরই কান্নাভেজা মুখমণ্ডলের ছবি এঁকেছেন জিম ক্যারি। টুইটারে নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে ছবিটি পোস্ট করেছেন তিনি। সেখানে তাঁর চোখ থেকে শোকের নীল জল ঝরতে দেখা যাচ্ছে। সেটি ছাড়াও কানাডার টরন্টোর ভ্যান হামলার সময় আঁকা একটি মর্মভেদী কার্টুন পোস্ট করেছেন এই অভিনেতা। গত বছর ঘটে যাওয়া সেই ঘটনায় ১০ জন মানুষ নিহত হয়েছিলেন। সেই ছবিতে ক্যারি লিখেছিলেন, ‘হাত দিয়ে মুখ ঢাকার কোনো উপায় নেই।’ক্রাইস্টচার্চে হামলার ঘটনায় আঁকা জিম ক্যারির কার্টুনগত শুক্রবার স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে নামাজ শুরু হওয়ার ১০ মিনিট আগে একজন বন্দুকধারী সিজদায় থাকা মুসল্লিদের ওপর গুলি ছুড়লে অন্তত ৪৯ জন নিহত হন। এ ঘটনায় বিশ্বজুড়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে। অন্য অনেকের মতো হলিউডের খ্যাতিমান অভিনেতা জিম ক্যারি ঘটনার নিন্দা জানালেন।

কমেডিয়ান হিসেবে অভিনয় করতে করতে ক্লান্ত হয়ে একপর্যায়ে ছবি আঁকতে শুরু করেছিলেন জিম ক্যারি। বিশ্বে ঘটে যাওয়া যেকোনো দুর্ঘটনায় কার্টুন এঁকে প্রতিবাদ করেন তিনি। এমনকি যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাঁকে দিয়েছে অর্থ, সুনাম ও খ্যাতি, সেই দেশের কঠোর সমালোচনা করতেও ভয় করেননি তিনি। টুইট করে একাধিকবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসনকে ধিক্কার জানিয়েছেন এই অভিনেতা। একবার ডোনাল্ড ট্রাম্পের কার্টুন এঁকে তিনি লিখেছিলেন, ‘ইতিহাসের সবচেয়ে বাজে এ প্রশাসন নিচ থেকে আরও নিচে নামছে।’গত বছর টরন্টোতে ভ্যান হামলার পর ছবিটি এঁকেছিলেন ক্যারি

গত বছর ইয়েমেনে মিসাইল হামলার পর ঘটনাটির রূপক একটি কার্টুন এঁকেছিলেন জিম। সঙ্গে লিখেছিলেন, ‘ইয়েমেনে ৪০টি নিষ্পাপ শিশুকে বাসের মধ্যে খুন করা হলো। বন্ধু আমাদের, মিসাইল আমাদের, অপরাধটিও আমাদের।’ হাফিংটন পোস্ট ও অন্যান্য

1