দ্বিতীয় সন্তানের ক্ষেত্রে আলাদা অভিজ্ঞতা

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকমঃপ্রথম সন্তানের জন্মের পর দ্বিতীয়বার মা হওয়া কিন্তু অনেকটাই আলাদা অনুভূতি। যে সব নারীরা একবার সন্তানের জন্ম দিয়েছেন, দ্বিতীয়বার গর্ভধারণ থেকে শুরু করে সন্তানের জন্ম ও তার পরবর্তী সময়েও তিনি অনেক সাবলীল ও চিন্তামুক্ত থাকেন। সবার আগে আসে অভিজ্ঞতা।
দ্বিতীয় সন্তানের মা হওয়ার সময়, এই পূর্ব অভিজ্ঞতা মা কে অনেক বেশি বাস্তববাদী এবং স্বাবলম্বী করে তোলে। সন্তানের জন্য মায়ের ভালোবাসার হেরফের কোনও দিনই হয় না, কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টে যায় এই দ্বিতীয় সন্তানের ক্ষেত্রে। মায়েরা দ্বিতীয় সন্তানের ক্ষেত্রে কিছু কিছু কাজ আলাদা করে থাকেন। দেখে নিন সেগুলো-
অনেক বেশি চিন্তামুক্ত থাকা
প্রথম বাচ্চার ক্ষেত্রে নতুন মা সব কিছুতেই বড্ড বেশি উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে। বাচ্চার কান্নার মানে বুঝতে গিয়ে নিজেই শুরু করে কান্নাকাটি। সামান্য শরীর খারাপ হলে বাচ্চাকে কোলে নিয়ে সারারাত কাটিয়ে দিতে পারে। শিশুর খাবার থেকে শুরু করে চুল ধোয়ানোর শ্যাম্পু, সবকিছুই যেন অতি উত্তম হয়, এই চিন্তাতেই অস্থির থাকে সারাক্ষণ। দ্বিতীয় সন্তানের ক্ষেত্রে, তারা বাচ্চার শরীর খারাপের উপসর্গগুলো বোঝে এবং জানে যে বাচ্চা জলদিই সুস্থ হয়ে উঠবে। বাচ্চার কান্নার মানে স্বচ্ছন্দে বুঝতে পারে। প্রথম বাচ্চা বড় করার অভিজ্ঞতা তাদের মধ্যে এই আত্মবিশ্বাস এনে দেয়।
গর্ভাবস্থায় তুলনামূলক ভালো জীবনযাত্রা মেনে চলে
ছোট ছোট ভুল থেকেই মানুষ শিখতে শুরু করে আর তার অভিজ্ঞতাও বাড়ে। দ্বিতীয়বার গর্ভধারণের সময় মা জানে যে, কি ধরনের খাবার খেতে হবে বা কতটুকু শারীরিক পরিশ্রম করা তার ও গর্ভস্থ সন্তানের জন্য ভালো।
অন্যের ওপর নির্ভরশীল থাকতে হয় না
প্রত্যেক মুহূর্তে পরামর্শ বা উপদেশ কিছুরই প্রয়োজন হয় না মায়ের। প্রথম বাচ্চার ক্ষেত্রে যে যা বলেছেন, মা মেনে নিয়েছে। ঠিক বা ভুল বিচার করার স্পর্ধা তখন সে দেখাতে পারেনি। কিন্তু, একটা বাচ্চার জন্ম দিয়ে সে বুঝে গেছে বাচ্চার জন্য কী ঠিক আর কী ভুল। নিজের ও বাচ্চার সম্বন্ধে সমস্ত সিদ্ধান্ত মা নিজেই নিতে পারে।

1