টানাপোড়া থাকলেও একত্রে মিলিত হয়ে নিজেদের ঐক্য ধরে রাখার চেষ্টা

0

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকমঃ সদ্য অনুষ্ঠিত উপজেলা নির্বাচনে পর আবার একসাথে হয়েছেন সোনারগাঁ জনপ্রতিনিধি এক্য ফোরামের সদস্যরা। উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী সমর্থন নিয়ে একে অপরের সাথে টানাপোড়া থাকলেও নির্বাচনের পর এবার তারা প্রথম কোন অনুষ্ঠানে একত্রে মিলিত হয়ে নিজেদের ঐক্য ধরে রাখার চেষ্টা করছেন।

জানাগেছে, সদ্য অনুষ্ঠিত উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে সোনারগাঁ জনপ্রতিনিধি এক্য ফোরামের সদস্যদের মধ্যে মত প্রার্থক্য দেখা দেয়। উপজেলা নির্বাচনে প্রত্যেক্ষ-পরোক্ষ ভাবে স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহফুজুর রহমান কালামকে সমর্থন দেন জনপ্রতিনিধি এক্য ফোরামের সভাপতি লিয়াকত হোসেন খোকা এমপি, সাধারণ সম্পাদক ও বারদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহিরুল হক, পিরোজপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ইঞ্চিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম, কাঁচপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোশারফ ওমর, বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ডাঃ আব্দুর রউফ, নোয়াগাঁও ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ইউসুফ দেওয়ান ও সম্ভুপুরা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল রব, জামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হামীম সিকদার শিপলু ও পৌর মেয়র সাদেকুর রহমান। তারা মাহফুজুর রহমান কালামের মনোনয়নপত্র জমা, প্রতিক বরাদ্ধসহ বিভিন্ন সভাসমাবেশ ও গণসংযোগে দেখা যায়। কিন্তু জনপ্রতিনিধি ফোরামের মধ্যে মত পার্থক্য দেখা দেয় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্র্থী নিয়ে। উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে লিয়াকত হোসেন খোকার পক্ষে প্রতিদ্ধন্ধিতা করেন আবু নাঈম ইকবাল তালা প্রতিকে অপরদিকে, কাঁচপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ ওমরের ছোট ভাই বাবু ওমর প্রতিদ্ধন্ধিতা করেন টিউবওয়েল প্রতিক নিয়ে। এ দুই ভাইস চেয়ারম্যানকে নিয়ে জনপ্রতিনিধি ঐক্য ফোরামের পক্ষে শুরু হয় টানাপোড়া।

জনপ্রতিনিধি ফোরামের সদস্যরা বাবু ওমরকে সমর্থন দেন অপরদিকে লিয়াকত হোসেন খোকাকে অনুরোধ করা হয় বাবু ওমরকে সমর্থন জানানোর জন্য। মনোনয়ন জামার দিন আবু নাঈম ইকবালকে লিয়াকত হোসেন খোকা নির্বাচন না করার অনুরোধ জানালেও পরে আবার তাকেই তিনি সমর্থন জানান। এতে জনপ্রতিনিধি ফোরামের হাতেগোনা কয়েকজন সদস্য কালামকে সমর্থন জানালেও কাঁচপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন ও সনমান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদ হাসান জিন্নাহসহ গোপনে অনেক সদস্যই নৌকার প্রার্থী মোশারফ হোসেনের পক্ষে কাজ করেন। ফলে নির্বাচনে মাহফুজুর রহমান কালাম মোশারফ হোসেনের কাছে ও বাবু ওমরের কাছে আবু নাঈম ইকবাল বিপুল ভোটে পরাজিত হন। সেই নির্বাচনের আগে বারদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও জনপ্রতিনিধি ঐক্য ফোরামের সাধারণ সম্পাদক হুসিয়ারী দিয়েছিলেন জনপ্রতিনিধি ফোরামের বাহিরে গিয়ে যারা কাজ করবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে, নির্বাচনে পর নিজেদের মধ্যে ভেদাভেদ ভুলে জনপ্রতিনিধি ফোরাম তাদের কার্যক্রম পুরনায় চালিয়ে নেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন সদস্যরা। এরই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার দুপুরে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষীদের মাঝে বিনামুল্যে বীজ ও সার বিতরন অনুষ্ঠানে সকল সদস্য উপস্থিত হন।

0