টুথব্রাশ জীবাণুমুক্ত রাখতে…

0

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: প্রতিদিন আপনি যখন সকালে ঘুম থেকে উঠে টুথব্রাশটি হাতে নেন, তখন আপনি হয়তো জানেন না এই ব্রাশটিতে কী লেগে আছে। মুখের মধ্যে দাঁতের সঙ্গে ব্রাশটি লাগানোর পর থেকে এর মধ্যে জীবাণু লাগতে শুরু করে। কারণ, এই জীবাণুগুলোই আপনার দাঁতে ও দাঁতের মাড়িতে ছিল। প্রদাহে আক্রান্ত একজন মানুষের মুখের ভেতরের জীবাণু তার ব্রাশের মধ্যে প্রায় ১ সপ্তাহ পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে। মুখের ভেতরে যদি কোনো কারণে মাড়িতে আঘাত লাগে, ক্ষত সৃষ্টি হয় অথবা ঘা থাকে, তবে সেখানকার সুস্থ ব্যাকটেরিয়া প্রদাহের কারণ হতে পারে। সাধারণত বাজারে দাঁতের ব্রাশগুলো জীবাণুমুক্ত প্যাকেটে বিক্রি হয় না, হয়তো অনেক দিন দোকানের তাকে পড়ে থাকে। এসব ব্রাশেও ব্যাকটেরিয়া লেগে থাকতে পরে। আবার রাতে তাকে বা বেসিনের ওপর রেখে দেওয়া ব্রাশের গায়ে সারা রাত ধরে তেলাপোকা বা অন্য কিছু হাঁটাহাঁটি করেনি—এমন কথাও নিশ্চিত করে বলা যায় না।

টুথব্রাশের যত্নে প্রতিদিনের করণীয়
• দাঁত ব্রাশের পর ব্রাশটিকে আপনি জলধারার নিচে অনেকক্ষণ ধরে এর ভেতরের লেগে থাকা ময়লা (খাদ্যকণা ও ব্যাকটেরিয়া) ধুয়ে পরিষ্কার করুন। ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, কিডনি রোগসহ বিভিন্ন রোগ থাকলে ব্রাশটিকে জীবাণুনাশক তরল পদার্থে ডুবিয়ে রাখুন ও তারপর ধুয়ে ফেলুন।

• বাজারে টুথব্রাশ জীবাণুমুক্ত করার জন্য নানা ধরনের উপকরণ আছে। সেগুলো সংগ্রহ করে ব্যবহার করা যেতে পারে।

• প্রতিদিন দাঁত ব্রাশ করার পর টুথব্রাশটি আবার একই কেবিনেটের মধ্যে অথবা বাথরুমের কাপ বোর্ড বা ড্রয়ারের মধ্যে রাখবেন না। ব্রাশটি ওপরের দিকে সোজা করে একটি কাপড়ের মধ্যে রাখুন, যাতে এর ভেজা অংশটি (সুতার মতো নাইলনের অংশটি) শুকিয়ে যেতে পারে। কারণ, ভেজা অবস্থায় জীবাণু বেঁচে থাকে দীর্ঘদিন। সেই জীবাণু আবার আপনার মুখের ভেতরে ব্রাশের মাধ্যমে প্রবেশ করতে পারে।

• সাধারণত ৩ থেকে ৪ মাস পরপর নতুন ব্রাশ ব্যবহার করা প্রয়োজন। মনে রাখবেন, দাঁতের ব্রাশের অগ্রভাগ (ব্রিস্টল) ব্যবহার করতে করতে বাঁকা হয়ে গেলে সঠিকভাবে কাজ করে না। এমন বাঁকা হয়ে গেলে তখনই ব্রাশ ফেলে দিতে হবে।

• আজকাল বাজারে ইলেকট্রিক টুথব্রাশ পাওয়া যায়। এগুলো অন্তত সুন্দরভাবে দাঁতের গায়ে ও মাড়িতে লেগে থাকা খাদ্যকণা অতি কম সময়ে পরিষ্কার করতে পারে। সম্ভব হলে এগুলো ব্যবহার করা ভালো।

0