রূপগঞ্জে স্কুল ছাত্র জিসান হত্যাকান্ড, গ্রেফতার-৩

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকমঃ  রূপগঞ্জে নবম শ্রেনীর শিক্ষার্থী জিসান হত্যাকান্ডের ঘটনায় পরিবারের লোকজন ভয়ে মামলা না দেওয়ায় পুলিশ বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত শুক্রবার ভুলতা ফাড়ির উপ-পরিদর্শক রোকনুজ্জামান বাদী হয়ে ১৭ জনকে নামীয় ও ৪/৫ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে হত্যা মামলাটি দায়ের করেন। এ হত্যার মামলার এজাহারভুক্ত তিন আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা ঘটনার সত্ততা স্বীকার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো, উপজেলার গোলাকান্দাইল দক্ষিনপাড়া এলাকার মনসুর আহমেদের ছেলে জাহিদ হাসান বিদ্যুৎ, মফিজুল ইসলামের ছেলে ইকরাম ও মৃত মোতালেব মিয়ার ছেলে পারভেজ।
রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান মামলার এজাহারের বরাত দিয়ে জানান, গত ২৫ আগষ্ট বেশকয়েকটি জাতীয় পত্রিকায় রূপগঞ্জে খুনিদের ভয়ে এলাকা ছাড়া নিহতের পরিবার শিরোনামে একটি নিউজ ছাপা হয়। এ নিউজ প্রকাশের পর পুলিশ ঘটনাটি অনুসন্ধানের জন্য ঘটনাস্থলে গিয়ে এলাকাবাসীকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গোলাকান্দাইল এলাকার সৌরভ, সিয়াম ও শাহিনের সঙ্গে শিক্ষার্থী জিসানের বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে আসামীরা জিসানকে শায়েস্তা করার পায়তারা করে আসছিল। এর বিরোধের জের ধরে গত ২২ আগষ্ট সৌরভ, সিয়াম, শাওন, জাহিদ হাসান বিদ্যুৎ, ইকরাম, পারভেজ, আল-আমিন, সাকিব, ইয়ামিন, মাসুম, মোস্তাকিম, রোহান, নিরব, আরমান, ইমন, হৃদয় ও ফাহিমসহ অজ্ঞাত ৪/৫ জন মিলে স্কুল শিক্ষার্থী জিসান ও তার বন্ধু শুভকে বাড়ি থেকে ডেকে গোলাকান্দাইল বালুর মাঠে এনে লোহার রড ও লাঠি দিয়ে গুরুতর আহত করেন। এক পর্যায়ে আসামীরা বন্ধু শুভকে পিটিয়ে তাড়িয়ে দেয়। পরে আসামীরা শিক্ষার্থী জিসানকে লোহার রড ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মরে গেছে মনে বালুর মাঠে ফেলে রেখে চলে যায়। পরে স্থানীয়রা জিসানকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া পথেই তার মৃত্যু হয়। অনুসন্ধানকালে শিক্ষার্থী জিসানের পরিবারের লোকজনকে হত্যা মামলা দায়ের করার অনুরোধ করা হলেও তারা ভয়ে আতঙ্কে মামলা করতে রাজী হয়নি। এ কারণে এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় মামলার এজাহারভুক্ত ৪,৫,৬ নং আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের নারায়ণগঞ্জ আদালতে পাঠানো হয়েছে। এ হত্যা মামলার বাকী আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

1