জামায়াতের লোক ছোট বোনকে টাকা দেয়- শামীম ওসমান

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকমঃ শামীম ওসমান কোন খেলাকে ভয় পায় না। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক, ‘এ মিশনপাড়া এলাকাতেই একটি বাড়িতে জামায়াতের কার্যালয় ছিল। এ বাড়ি থেকেই আমার ছোট বোনকে টাকা দেওয়া হয়। কিছুদিন আগে দেখলাম একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। জামাতের নেতা আলী আহসান মুজাহিদের স্ত্রীর সঙ্গে আমাদের কার কার সম্পর্ক সেটা আছে। মুজাহিদ যখন ফাঁসির দড়ির সামনে তখন কে তার স্ত্রী পরিবারের লোকজনদের সনদ দিয়েছে। কে নামমাত্র মূল্যে আদর্শ স্কুলের জায়গা বরাদ্দ দিয়েছে। কিন্তু সময় হলে আবার নৌকার জন্য কাঁদবেন সেটা আর হবে না।’

শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) চাষাড়ার হকার্স মার্কেটের সামনে বিশাল সমাবেশে তিনি বক্তব্য রাখেন।

তবে এর আগে চাষাড়া শহীদ মিনারে সমাবেশটি হওয়ার ঘোষণা দেন। পরে অজ্ঞাত কারনে স্থান বদলে ট্রাকের উপর মঞ্চ সাজিয়ে সমাবেশ করেন। সমাবেশ স্থল বদলের প্রকৃত কারন জানা যায় নি। তবে সাধারন মানুষ বলছে মেয়র আইভি ও পুলিশ সুপার শহীদ মিনারে সমাবেশ করতে দেয় নি। সমাবেশের দিন সকাল থেকে শহরের বিভিন্ন স্থলে বিপুল পরিমান পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়াও সমাবেশের ভেতরে বিনা পোশাকে কয়েকশ পুলিশ সদস্য উপস্থিত ছিলেন। এদের মধ্যে কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে সমাবেশে দেয়া বক্তব্য ভিডিও করতে দেখা গেছে। সমাবেশে তিনি সিদ্ধিরগঞ্জে বাক প্রতিবন্দ্বি সিরাজকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় মামলার সমালোচনা করেন।

সমাবেশে তিনি বলেন, কিছু পত্রিকায় লেখে। পত্রিকা বলা যায় না এগুলোকে। যেগুলো দেয়ালে লাগায়। দু একটা পত্রিকায়। কেউ কেউ পয়সা দেয় এগুলোতে লেখার জন্য। কর্মীরা নিঃস্বার্থ। এখানে যারা মঞ্চে আছেন তারা নিঃস্বার্থ। আমাদের শরীরে হারাম নেই। যা আছে সব হালাল। কারে খেলা শিখান আমারে। বেশি বড় খেলোয়াড় হইতে পারি নাই। তবে আগে মাথার তার ছিড়া খেলোয়াড় ছিলাম আগে। গোলাম আজম ছিলো নারায়ণগঞ্জের এক শিল্পপতির বাসায়। যে আমার এক ছোট বোনকে টাকা দেয়। যারা এনিমি প্রপার্টি তাদের খাস জমি বানিয়ে দেয়া হয়। তারা আওয়ামী লীগ সাজার চেষ্টা করে। একজন পুলিশের ছোট কর্মকর্তা টেক্সট করেন অমুকের বিরুদ্ধে নিউজ করেন। সেটা আবার সাংবাদিক এসে আমাকে দেখায়। এ সময় নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন থানা থেকে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা আগমন করেন। চাষাড়া লোকে লোকারণ্য হয়ে উঠে। তবে অনেকে বলছেন অতীতের চেয়ে কম লোকের সমাগম হয়েছে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা দাবী করেন দেড় লাখের বেশি লোক সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।

1