ভূলতা ফ্লাইওভারের নিচের সড়ক দখল করে দুই পাশেই অবৈধ স্ট্যান্ড

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম:  নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ভূলতা ফ্লাইওভারের নিচের এলাকা ও সড়কের দুই পাশ গড়ে ওঠেছে অবৈধ স্ট্যান্ড। এসব স্ট্যান্ড জুড়েই রয়েছে যেসব গাড়ি, সিএনজি, অটোরিকশা, ইজিবাইক, নসিমন-লেগুনা, প্রাইভেট-কার, পিক-আপ স্ট্যান্ড ছাড়াও রয়েছে বাস কাউন্টার- মেঘলা, গুলুরী, আশিয়ান, যাতায়াত, অন্যন্যা সুপার, রয়েল, মনোহরদী পরিবহন, বিআরটিসি বাস কাউন্টার। এসব স্ট্যান্ড যেন মহাসড়ক ও হাইওয়ে সড়কের বিষফোঁড়া। এতে ফ্লাইওভারের নিচের সড়ক ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের প্রায় ১ কি.মি. জায়গা জুড়ে গড়ে তোলা হয়েছে অবৈধ গাড়ির পার্কিং। ভূলতা-গোলাকান্দাইল থেকে জেলার বিভিন্ন আঞ্চলিক সড়কে চলাচলকারী যানবাহনের স্থায়ী কাউন্টার না থাকায় সড়ককে স্ট্যান্ড হিসেবে ব্যবহার করছে তারা। ফলে ফ্লাইওভার উদ্বোধনের পরও যানজট লেগে আছে। সরেজমিন পরিদর্শন ও স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, ভূলতা ও গোলাকান্দাইল ঢাকা- সিলেট মহাসড়ক ও গাজীপুর-চট্টগ্রাম এশিয়ান হাইওয়ে সড়কের দুই পাশেই অবৈধ স্ট্যান্ড বানিয়ে রেখেছে চাঁদাবাজরা। ফলে ভূলতা ফ্লাইওভারের নিচের সড়ক এখন স্ট্যান্ড হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। দেখার যেন কেউ নেই। লোকাল গাড়ি ছাড়া দূর-পাল্লার বেশির ভাগ যানবাহন ভূলতা চার লেন বিশিষ্ট ফ্লাইওভার দিয়ে চলাচল করে। এতে নিচের সড়কটিকে পার্কিং আর স্ট্যান্ড হিসেবে ব্যবহার করছে বাস চালক ও বিভিন্ন স্ট্যান্ডের চাঁদাবাজরা। অবৈধ স্ট্যান্ড টিকিয়ে রাখতে গাড়ি প্রতি নামে বেনামে আদায় করা হচ্ছে মোটা অঙ্কের চাঁদা। এ টাকা প্রশাসনসহ বিভিন্ন দপ্তরে পৌঁছে দেন বলে জানান নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক জাতীয় পরিবহন শ্রমিকলীগের নেতা । গোলাকান্দাইল এশিয়ান হাইওয়ে সড়কের কাঞ্চনমুখী ও মদনপুরমুখী সড়কের দুই অংশেই সিএনজি ও অটো স্ট্যান্ড হওয়ায় এখানে যানজট যেন নৃত্য দিনের সঙ্গী। এছাড়া প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট খাটো দূর্ঘটনা। এসব দেখার কেউ নেই। ট্রাক ও পিক-আপ ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের দুই পাশে দাঁড় করিয়ে মালামাল উঠা-নামা করার ফলে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। অভিযোগ রয়েছে, এসব অবৈধ স্ট্যান্ড থেকে মাসোয়ারা নেয় প্রশাসন। হাইওয়ে পুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা এসব গাড়ি দেখেও না দেখার ভান করে। এ নিয়ে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় ও টিভিতে সচিত্র প্রতিবেদন করা হলেও চাঁদাবাজ সিন্ডিকেটের দৌরাত্মের কারণে তা বন্ধ হচ্ছে না। এ বিষয়ে মুঠোফোনে কাঁচপুর হাইওয়ে থানার (ওসি) মোজাফফের আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা শীঘ্রই এসব অবৈধ স্ট্যান্ডগুলোতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করবো।
রূপগঞ্জ প্রতিনিধি

1