র‌্যাব-১১ এর পৃথক অভিযানে ০৩ চাঁদাবাজ গ্রেফতার

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধের উৎস উদঘাটন, অপরাধীদের গ্রেফতার, আইন শৃংখলার সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বিভিন্ন অপরাধীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার জন্য র‌্যাব ফোর্সেস নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে থাকে। সাম্প্রতিক সময়ে র‌্যাব-১১ এর দায়িত্বপূর্ন এলাকায় চাঁদাবাজি অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। উক্ত অপরাধ দমনের লক্ষ্যে র‌্যাব-১১ চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে আসছে।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ০৭ ডিসে¤¦র ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দে দিবাগত রাতে র‌্যাব-১১, সিপিএসসি এর পৃথক অভিযানে নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ থানাধীন তারাবো পৌরসভার দক্ষিণ পাড়া, সোনালী রোডস্থ শবনম ভেজিটেবলস অয়েল মিলস লিঃ এর সামনে এবং সোনারগাঁ থানাধীন কাচঁপুর এলাকায় রাস্তায় চলাচলরত পণ্য বোঝাই ট্রাক, যাত্রাবাহী বাস, লেগুনা, সিএনজি ও অটোরিক্সা থামিয়ে চাঁদা আদায়কালে ০৩ জন’কে হাতে-নাতে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো ১। মোঃ মাসুদ পারভেজ ভূঁইয়া @ কুত্তা মাসুদ (৪৪), ২। মোঃ ইমন (২৫), ৩। মোঃ ফারুক হোসেন (৩৫)। এ সময় তাদের দখল হতে চাঁদাবাজির সর্বমোট নগদ ৫,৩১০/- উদ্ধার করা হয়।

উপস্থিত স্বাক্ষী, পরিবহন চালক ও গ্রেফতারকৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় একটি চাঁদাবাজ চক্র দীর্ঘদিন ধরে চাঁদাবাজ মোঃ মাসুদ পারভেজ ভূঁইয়া @ কুত্তা মাসুদ ও তার সহযোগী মোঃ ইমন এবং অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনকে নিয়ে প্রকাশ্যে দিবালোকে তারাবো পৌরসভায় শবনম ভেজিটেবলস অয়েল মিলস এর আশপাশে যে কোন স্থানে বিভিন্ন কোম্পানীর পণ্য বোঝাই ট্রাক চালকদের কাছ থেকে ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করে জোরপূর্বক গাড়ী প্রতি ১০০/- থেকে ৩০০/- টাকা করে চাঁদা আদায় করে আসছে। নারায়ণগঞ্জের তারাবো এলাকায় রাস্তায় চলাচলরত পণ্য বোঝাই ট্রাক, যাত্রাবাহী বাস ও লেগুনা থামিয়ে চাঁদা আদায়কালে উক্ত চাঁদাবাজ চক্রের মূলহোতা মোঃ মাসুদ পারভেজ ভূঁইয়া @ কুত্তা মাসুদ’কে হাতে-নাতে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার দখল হতে চাঁদাবাজির নগদ ৩,২৯০/- টাকা জব্দ করা হয়। উক্ত আসামীর বিরুদ্ধে চুাদাবাজিসহ বিভিন্ন অপরাধ সংক্রান্ত প্রায় অর্ধ ডজনেরও অধিক মামলা রয়েছে। চুাদাবাজির পৃথক আরেকটি অভিযানে সোনারগাঁ থানাধীন কাঁচপুর এলাকায় রাস্তায় চলাচলরত পণ্য বোঝাই ট্রাক, যাত্রাবাহী বাস ও লেগুনা থামিয়ে চাঁদা আদায়কালে ১। মোঃ ইমন (২৫) ও ২। মোঃ ফারুক হোসেন (৩৫)’দেরকে হাতে-নাতে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের দখল হতে চাঁদাবাজির নগদ ২,০২০/- টাকা জব্দ করা হয়। তারা দীর্ঘদিন যাবৎ রাস্তায় চলাচলরত পণ্য বোঝাই ট্রাক, যাত্রীবাহী বাস, লেগুনা, সিএসজি ও অটোরিক্সা চালকদের নিকট থেকে জোরপূর্বক গুরুতর ভয়ভীতি দেখিয়ে দৈনিক ৫০/- টাকা থেকে ১০০/- টাকা পর্যন্ত অবৈধভাবে চাঁদা আদায় করে আসছে। গ্রেফতারকৃত আসামীরা পরস্পর যোগসাজশে উল্লেখিত যানবাহনের চালকদের নিকট হতে গুরুতর আঘাত ও ক্ষয়ক্ষতির ভয়ভীতি দেখিয়ে বলপূর্বক চাঁদা আদায় করে আসছে। এ সকল চাঁদাবাজদের অত্যাচারে যানবাহন চালকরা অতিষ্ঠ। চাঁদাবাজি বন্ধে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

 গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।প্রেস রিলিজ

1