ঠাকুর অনুকুল চন্দ্র ছিলেন মনবতার অগ্রদুত – আনন্দধাম সনাতনে সিমু

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: আনন্দধামের নির্বাহী চেয়ারম্যান অটিজম জননী হাসিনা রহমান সিমু বলেছেন শ্রী শ্রী ঠাকুর
অনুকুল চন্দ্র ছিলেন মনবতার অগ্রদুত।

গতকাল ১৩ ই ডিসেম্বর ২০১৯ এ স্থানীয় শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকুল চন্দ্র সৎসঙ্গ নারায়নগঞ্জ জেলার উদ্যোগে শ্রী শ্রী গৌর নিতাই আখড়া, পালপাড়া, দেওভোগে ভাবগাম্ভীর্য পূর্ণ পরিবেশে আয়োজিত নামজব অনুষ্ঠানে উনি একথা বলেন।

শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকুল চন্দ্রের ভক্তবৃন্দ ও আনন্দধামের নির্বাহী চেয়ারম্যান হাসিনা রহমান সিমু ছাড়াও এই মহতি অনুষ্ঠানে অন্যানের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন আনন্দধাম সনাতনের সভাপতি বাবু শ্যামল দত্ত, আনন্দধামের পরিচালকবৃন্দের মধ্যে সর্ব জনাব মতিউর রহমান মুক্তি, এনামুল হক প্রিন্স, রনজীদ পোদ্দার, অমল মন্ডল অমল, নারায়ন চন্দ্র দাস, অজুন চন্দ্র দাস, গবিনদ, গৌতম, রতন সাহা, হরি চরন সাহা, লিটন দাস, ডালিম, মাকসুদ আখি, খোকন মিয়া, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

আনন্দধামে নির্বাহী চেয়ারম্যান হাসিনা রহমান সিমু তার বক্তব্যে বলেন, পরম প্রেমময় অনুকুল চন্দ্র ঠাকুর জীবনের দুঃখ দুর্দশা থেকে মুক্তি দিতেই মানুষকে পথ বাতলেছেন ৷

ঠাকুর অনুকূল চন্দ্র এমনি পরম ভক্ত ছিলেন যে, তার সারা জীবনের সকল কর্ম, বলা,চলা সকল কিছুই ভগবানের কৃপা বলে মনে করতেন। তিনি সকলকে বুঝাতেন ভগবানের সাথে আমাদের সম্পর্ক কতটুকু।

তিনি বলতেন, ভগবান সবার কাছে সমান। আমরা ভগবানকে ততখানি পাই যতখানি ভক্তি অনুরাগে তার দিকে অগ্রসর হই। আলোর কাছে যত যাব তত আলো অনুভব করব ও তাপ পাব।

তিনি মানুষকে ভালবাসার রাস্তা দেখিয়েছেন। তিনি ব্রহ্মকে সঠিক অর্থেই উপলব্ধি করেছিলেন তিনি ৷ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন সৎসঙ্গ।

সিমু তার বক্তব্যে আরো বলেন, মনের বিশ্বাসে প্রেমময় ঠাকুরের অনুসরন করুন তাহলেই আপনি পাবেন জাগতিক সুখ ৷

সভা শেষে প্রসাদ বিতরন করা হয়।

1