সিদ্ধিরগঞ্জে ৬৫০ কেজি অননুমোদিত প্যাকেটজাত ভারতীয় মহিষের মাংস জব্দ॥ একজনের কারাদন্ড

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: নারায়ণগঞ্জ মহানগরীর সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজী বিহারী ক্যাম্প এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৬৫০ কেজি অননুমোদিত প্যাকেটজাত ভারতীয় মহিষের মাংস জব্দ করেছে র‌্যাব-১১ সদস্যরা। এ সময় মোঃ সামির নামে একজনকে আটক করে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। রবিবার রাতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ বিষয়ে সোমবার বিকেলে র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ জসিম উদ্দীন চৌধুরীর পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।
র‌্যাবের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, তারা সপ্তাহে ৩ দিন ঢাকার তেজগাঁও হতে অননুমোদিত ভাবে প্যাকেটজাত মাংসগুলো নিয়ে এসে নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন রেষ্টুরেন্ট ও স্থানীয় কশাই’র কাছে বিক্রি করে দিচ্ছে। যা তারা হোটেল ও রেষ্টুরেন্ট ও সাধারণ লোকজনের কাছে গরুর মাংস বলে বিক্রি করে। হিমায়িত ও প্যাকেটজাত মাংসগুলো বিক্রির জন্য আইনানুযায়ী প্রাণিসম্পদ কর্তৃক কোয়ারান্টাইন সার্টিফিকেট থাকার প্রযোজন তা তাদের নেই। আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান হিসেবে তারেক ট্রেডার্স ও ইগলু এবং প্যাকেটের গায়ে তারেক ট্রেডার্স ও ইগলু লেখা থাকলেও উক্ত কোম্পানীর অনূকুলে প্রাণী সম্পদ অধিদফতরের কোয়ারান্টাইন সার্টিফিকেট তারা দেখাতে পারেনি। হিমায়িত মাংস প্রক্রিয়াজাতকরণের আইনানুযায়ী প্যাকেটজাত করা হতে ভোক্তার কাছে পৌঁছা পর্যন্ত যে ফ্রিজিং চেইন রাখার বিধান থাকলেও তা অমান্য করে তারা নন-ফ্রিজিং গাড়িতে নিয়ে আসে যার ফলে মাংসের গুণগতমান নষ্ট হয়ে যায় এবং এই মাংস জনস্বাস্থ্যের পক্ষে ব্যাপক ক্ষতিকর বলে প্রতীয়মান হয়। এ বিষয়গুলো আমলে নিয়ে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে অপরাধ স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসান ফারুক ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে অভিযুক্ত মোঃ সামিরকে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। ভ্রাম্যান আদালত জব্দকৃত মহিষের মাংস ধ্বংস করার নির্দেশ দেন।

1