খুব যত্নে রাখা মুন্নার জার্সি বিক্রি হলো ৫ লাখ ১০ হাজারে

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম: করোনাভাইরাসের কারণে অসহায়দের সহায়তায় এগিয়ে আসতে বাংলাদেশের ফুটবলের কিংবদন্তি মোনেম মুন্নার জার্সি নিলামে তুলেন তারই স্ত্রী ইয়াসমিন মোনেম সুরভী। গতকাল রাতে ফেসবুক পেইজ ‘অকশন ফর অ্যাকশন’ থেকে নিলামে উঠে মুন্নার জার্সি। লাইভে উপস্থিতি ছিলেন প্রয়াত মুন্নার স্ত্রী সুরভীও। নিলামে মুন্নার দুটি জার্সি বিক্রি হয়েছে ৫ লাখ ১০ হাজার টাকায়।

১৯৮৯ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট গোল্ডকাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়া বাংলাদেশ লাল দলের হয়ে খেলেছিলেন মুন্না। ঐ আসরে যে জার্সিটি দিয়ে খেলেছিলেন মুন্না, সেটি নিলামে উঠে। ‘২’ নাম্বার জার্সি পরে খেলেছিলেন তিনি। জার্সিটির ভিত্তিমূল্য ধরা হয়েছিল ২ লাখ টাকা। আর নিলামে জার্সিটি বিক্রি হয়েছে ৩ লাখ টাকায়। কিনেছে কার্নিভাল ইন্টারনেট নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

জাতীয় দলের সাথে প্রিয় ক্লাব আবাহনী লিমিটেডের হয়ে খেলা মুন্নার একটি জার্সিও নিলামে বিক্রি হয়েছে। প্রথমে আবাহনীর জার্সিটি নিলামে তোলা হয়নি, কিন্তু নিলাম করা প্রতিষ্ঠানে সরাসরি যোগাযোগ করে ২ লাখ ১০ হাজার টাকায় কিনে নেন এইচএসবিসি ব্যাংকের সিইও মাহবুবুর রহমান। জার্সি দুটির বিক্রির পুরো অর্থ করোনায় অসহায় মানুষদের সহযোগিতায় দান করা হবে।

কিডনি রোগে ভূগে ২০০৫ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি মাত্র ৩৮ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন মুন্না। মুন্নার মৃত্যুর পর তাঁর আটটি জার্সি ও এক জোড়া বুট নিজের কাছে রেখে দেন স্ত্রী সুরভী। মুন্নার স্মৃতি ধরে রেখেই জীবন পার করছিলেন তিনি। তবে দেশের এই সংকটকালে অসহায়-দুস্থ মানুষদের সহায়তার লক্ষ্যে মুন্নার জার্সিটাগুলো নিলামে তুলেন সুরভী। তবে মুন্না বেঁচে থাকলে দেশের জন্য এর চেয়ে বেশি করত বলে লাইভে জানান সুরভী, ‘আসলে আমি যা করছি, তা খুবই সামান্য। মুন্না বেঁচে থাকলে, এর চেয়েও আরও বেশি করত।’

জার্সি নিলামে তোলার উদ্যোগ কিভাবে নিলেন সুরভী, সেটিও বলেন, ‘আমাকে একজন ম্যাসেঞ্জারে জানায়, মুন্নার জার্সি নিলামে তুলতে পারেন। সেখান থেকে পাওয়া অর্থ অসহায়তাদের সহায়তায় কাজে লাগবে। তখন আমি ভাবলাম, দেশের মানুষের উপকারে আসতে পারি, তবে আমারও ভালো লাগবে। এজন্যই এমন উদ্যোগ নেয়া হয়।’

অকশন ফর অ্যাকশন’- নামের ফেসবুক পেজের মাধ্যমে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বড় তারকা সাকিব আল হাসানের প্রিয় ব্যাটও নিলামে তোলা হয়েছিল। সেটি ২০ লাখ টাকায় বিক্রি হয়। বাংলাদেশের কিংবদন্তি ফুটবলার মুন্নার জার্সি খুব যত্ন করে রেখে দিয়েছিলেন বলে জানান সুরভী, ‘খুব যত্ন করে রেখে দিয়েছিলাম মুন্নার জার্সিটি। মুন্নার কথা মনে পড়লেই দেখতাম। আমি চাই আমার স্বামী মুন্নার সম্মান যেন থাকে। জার্সি বিক্রির পুরো অর্থই প্রদান করা হবে দুস্থদের সহায়তায়।’

1