নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিক কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদের স্মরণসভা

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম:  কমরেড রফিক খানের ১৯ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিক কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে স্মরণসভা আজ বিকাল ৪ টায় ২ নং রেলগেইটস্থ সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিক কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদ এর সমন্বয়ক হাফিজুল ইসলামের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখেন জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি হিমাংশু সাহা, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আব্দুল হাই শরীফ, বিপ্লবী শ্রমিক সংহতির নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু হাসান টিপু, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক বিমল কান্তি দাস।
নেতৃবৃন্দ বলেন, রফিক খান ছিলেন ওয়ার্কার্স পার্টি ও জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের নারায়ণগঞ্জ জেলার নেতা। ২০০১ সালের ৫ জুন মাদারীপুর ১১ দলের জনসভা থেকে তার গ্রামের বাড়ি ফেরার পথে প্রতিপক্ষরা তাকে নির্মমভাবে হত্যা করে। পূর্ব পরিকল্পিত এই হত্যাকা-ের বিচার চেয়ে তৎকালীন ১১ দলের উদ্যোগে দেশব্যাপী বিক্ষোভ আন্দোলন হয়েছিল। হত্যাকারীরা রাজনৈতিক মদদপুষ্ট প্রভাবশালী হওয়ায় রফিক খান হত্যার বিচার আজও হয়নি।
নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের ২৫ টি রাষ্ট্রীয় মালিকানার পাটকল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের মাধ্যমে সমস্ত শ্রমিক ছাঁটাইয়ের এবং পিপিপি মাধ্যমে পাটকলগুলো ব্যাক্তি মালিকানায় দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। শ্রমিকদের কর্মহীন করে ব্যক্তি মালিকদের সুবিধা করে দেয়ার জন্য সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
নেতৃবৃন্দ বলেন, করোনাকালেও গার্মেন্টসসহ বিভিন্ন কারখানায় অব্যাহত শ্রমিক ছাঁটাই চলছে। শোভন গ্রুপে দুই শতাধিক শ্রমিক ছাঁটাই করা হয়েছে। ওয়েস্ট নীটওয়ার, মুনলাক্স কম্পোজিট, পোলস্টার গার্মেন্টসে ব্যাপক ছাঁটাই হয়েছে। ফকির, অন্তিম, আহসান গার্মেন্টসে মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার, হয়রানি, বরখাস্ত চলছে। বর্ণালী ডাইং বন্ধ। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে অবিলম্বে পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার ও গার্মেন্টসসহ সকল ছাঁটাইকৃত শ্রমিকদের চাকরিতে পুনর্বহাল, মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও বন্ধ কারখানা চালুর দাবি করেন।

1