ফিস্টুলা রোগ ক্যান্সার রুপ নিতে পারেসোনারগায়ে কর্মশালায়-স্বাস্থ্য কর্মকর্তা

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম:  প্রাতিষ্ঠানিক ডেলিভারি বৃদ্ধি এবং ফিস্টুলা হ্রাস সর্ম্পকে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ্যাডভোকেসী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গত ২৫ জুন বৃহস্পতিবার এ্যাডভোকেসী সভার আয়োজন করে লাইফষ্টাইল, হেলথ এডুকেশন এন্ড প্রমোশন, স্বাস্থ্য শিক্ষা ব্যুরো ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর মহাখালী ঢাকা এবং রুব্রিক কমিউনিকেশন।
এ্যাডভোকেসী সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ পলাশ কুমার সাহা। আরো বক্তব্য রাখেন জেলা সিভিল র্সাজন কার্যালয়ের সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ মহিউদ্দিন মিয়া ও জুনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ শাকির হোসেন।
এ সময় কর্মকর্তাগন বলেন, ‘ফিস্টুলা’ পায়ুপথের একটি কঠিন রোগ। এটাকে বাংলায় বলা হয় ভগন্দর বা সরু নালী। পায়ুপথের ভিতরে কিছু গ্রন্থি ও কোটি কোটি জীবনু ছড়িয়ে পড়ে এবং ফোড়া তৈরী হয়। এই ফোড়া কোন এক সময় পায়ুপথের ভিতরে ফেটে যায়। তখন পায়ুপথের সঙ্গে বাহিরে একটি ড্রেন বা নালী তৈরী হয়। যা দিয়ে পুজ, রক্ত ও মল ইত্যাদি বাহিরে আসতে থাকে। এটাই হলো এনাল ফিস্টুলা। এটি একটি অত্যন্ত জটিল রোগ। এই রোগে একমাত্র চিকিৎসা অপারেশন এবং অপারেশনের পরেও ভালো হতে অনেক সময় লাগে। ফিস্টুলা অনেক দিন চিকিৎসা বিহীন থাকলে ক্যান্সার হতে পারে।
ফিস্টুলা রোগের লক্ষণ সর্ম্পকে বলেন, মলদ্বার ফুলে যায়, ব্যথা করা, পূঁজ বা তরল পদার্থ বের হয়। কর্মকর্তাগন আরো বলেন, এই রোগে বেশির ভাগ রোগীরাই অপচিকিৎসার শিকার হয়ে আমাদের কাছে আসেন। এমনও দেখা যায়, অনেক রোগী রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করে শেষ পর্যন্ত মলদ্বরের মারাত্বক ক্ষতি করে। তাই সঠিক সময়ে সঠিক চিকিৎসা নিতে হবে। এ্যাডভোকেসী সভায় মাঠপর্যায়ের কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

1