সিদ্ধিরগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ৫ ॥ আটক ৪

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডটকম:  সিদ্ধিরগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ৫ জন আহত হয়েছে।এই ঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ ৪ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল রোববার বেলা আড়াইটায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানার গোদনাইল মৌজার সুমিলপাড়া আইলপাড়া এলাকায়।
জানা গেছে, গোদনাইল মৌজার সি.এস ও এস.এ ৪৭১,৪৬৯ এবং আর.এস ১১৩৭,১১৩৮ দাগে ১০ শতাংশ সম্পত্তি স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদির মেম্বারের পুত্র আইনজীবী শাহ আলম মানিক ক্রয় করেন।জমি ক্রয় করার পর তার নিজ নামে নামজারী জমাভাগ করে সরকারের সকল খাজনাদি পরিশোধ করেন। কিন্তু উক্ত জমির ওয়ারিশ দাবীদার বাবুল,জুলহাস, দুলাল মিয়া, আবুল হোসেন ও শায়লা গং জমি বিক্রয়কারীদের উপর চড়াও হয় এবং জোরপূর্বক দখল করার চেষ্টা চালায়। এই ঘটনা টের পেয়ে আইনজীবী শাহআলম মানিক গত ২০ জুলাই নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৪৫ ধারায় একটি পিটিশন মামলা নম্বর ২৬৬/২০ দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত শুনানি শেষে জোরপূর্বক জমি দখলের চেষ্টা হতে বিরত থেকে নালিশি জমিতে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য উভয়পক্ষকে নির্দেশ প্রদান করে তা বাস্তবায়নের জন্য সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের নিকট আদেশের অনুলিপি প্রেরণ করেন। যার স্মারক নং এডিএম(এন)- ২০২০/৪৭৬ ,তাং- ২০.০৭.২০ইং।বিজ্ঞ আদালতের আদেশের আলোকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এএসআই ইমরুল হোসেন খান সঙ্গীয় ফোর্সসহ উভয়পক্ষকে নোটিশ প্রদান করার জন্য গতকাল রোববার ঘটনাস্থলে গেলে বিবাদীরা নোটিশ গ্রহণ না করে পুলিশের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ ও অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করতে থাকে ।একপর্যায়ে বিবাদীরা পুলিশের ওপর চড়াও হলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে পাপ্পু, রাব্বি, দুলাল ও হৃদয় নামে চারজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, পুলিশ ৪ জনকে থানায় নিয়ে যাওয়ার পর বাবুল, দুলাল, পারভেজ, শায়লা ,অনিক ,আবুল হোসেন, জুলহাস মিয়া, সেলিম, রনি ও সালামের নেতৃত্বে জমি বিক্রয়কারীদের উপর লাঠিসোটা, দা- বটি নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায় ।এতে রাজু, মিনারা বেগম, রিয়া বেগম, মিনু আক্তার ও সুমি আক্তার নামে পাঁচজন আহত হয় । আহতদের মধ্যে মিনারা বেগম এর অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার কর্তব্যরত ডিউটি অফিসার কাজল মজুমদার জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৪ জনকে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তবে পুলিশের ঊর্ধ্বতন অফিসার ঘটনার তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাত সাড়ে আটটা থানায় মামলা হয়নি।তবে ডিউটি অফিসারের সামনে অবস্থানরত আহত মিনারা আক্তার, সুমি ও রিয়া জানায়, আমাদের পক্ষ থেকে অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। এদিকে, পুলিশের ওপর চড়াও এর বিষয়টি জানার জন্য সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় সরেজমিন গিয়ে এএসআই ইমরুল হোসেন খানকে পাওয়া যায়নি ।তাছাড়া তার মুঠোফোনে বারবার ফোন করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

1