মতিউর রহমান প্রধান ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে হুমকীর অভিযোগ

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টি ফোর ডটকম :  ফতুল্লায় জমি দখলে নিতে আওয়ামী লীগ নেতা মতিউর রহমান প্রধান ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে হুমকীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়াও অনুপ্রবেশ করে জোরপূর্বক বালু দিয়ে অনেকাংশের জমি বরাট করে বাঁশের খুটি দিয়ে স্থাপনা নির্মাণের চেষ্টা চালিয়ছে মতিউর প্রধান গং।
রবিবার (১১ অক্টোবর) সকালে মাসদাইর গুদারাঘাট পতেঙ্গার মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে ভুক্তভোগীরা ৯৯৯ এ কল দিলে পুলিশ আসলে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় মতিউর প্রধানের লোকজন। এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছে মির্জা মো. মনির নামে এক ভুক্তভোগী ।
জানা গেছে, মাসদাইর শেরে বাংলা সড়কের বাসিন্দা মির্জা মো. লাল মিয়ার ছেলে মির্জা মনির ওয়ারিশ সূত্রে পাওয়া জায়গায় দীর্ঘদিন ভোগ দখলে বিদ্যমান রয়েছে। তবে তা দখলে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে এনায়েতনগর ইউনিয়ন ৭, ৮, ৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. মতিউর রহমান প্রধান।
এরআগে ৭ অক্টোবর বুধবার দুপুরে স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা মতিউর প্রধান, মো. শাহ জালাল, সিরাজ মিয়া, নিজাম মুন্সি সহ ৬/৭জন সন্ত্রাসী নিয়ে ভুক্তভোগীদের হুমকী ও শারিরীকভাবে লাঞ্ছিত করেছে বলে জানায় মির্জা মনির। জিডিতে আরো উল্লেখ রয়েছে, ৪/৫ দিনের মধ্যে ঘরবাড়ি ও দোকানপাঠ সরিয়ে না নিলে সব কিছু ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়া হবে। এতে করে ভুক্তভোগী ও তার স্বজনরা আতংকে দিন কাটাচ্ছে।
এ ব্যাপারে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মতিউর রহমান প্রধান বলেন, তাদের অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমি চাইলে অনেক কিছুই করতে পারি। আমি ওই জায়গার উপর একটা আদালতের রায় পেয়েছিলাম গত বছরের নভেম্বরে। তবে তারা এখন জোরপূর্বক দখল করে রেখেছে। আজ আমি বালু ভরাট করে ঘর তুলেছিলাম। তবে তারা বাধা দেয়ায় আমরা চলে এসেছি।
তবে এ বিষয়ে মির্জা মো. মনির জানান, মামলার কোন রায় হয়নি। তিনি এমন কোন কাগজ দেখাতে পারবেন না। আর এমনটা হলে আদালতের নির্দেশনায় প্রশাসনকে নিয়ে লাল নিশানা রেখে, প্রকৃত মালিক জায়গা বুঝে নিবে।ইতমধ্যে জেলা জজ কোর্টে দেওয়নি মামলা নং ৫৮/২০২০ আপিল করা হয়েছে।এতে বাদি মো. দুলাল ও বিবাদি মো. কামাল গং, সেখানে মতিউর রহমান প্রধান কিভাবে দখলে যায়। আদালত মামলার আপিল আমলে নিয়েছে। যদি আদালত আমাদের বুঝিয়ে দিতে বলে আমরা তা ই করবো।

1