১৭ বছরের ক্যারিয়ারের ইতি টানলেন মাসচেরানো

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টি ফোর ডটকম :  ফুটবলকে বিদায় জানালেন হাভিয়ের মাসচেরানো। ফুটবল মাঠে আর দেখা যাবে না ৩৬ বছর বয়সী এই আর্জেন্টাইনকে।

গত জানুয়ারিতে নাম লিখিয়েছিলেন আর্জেন্টাইন ক্লাব এস্তোদিয়ান্তেস লা প্লাটায়। খেলার কথা ছিল চলতি মৌসুমের পুরোটাই। বয়সের কাছে হার মানলনে। বিদায় ঘোষণার দিন মাসচেরানো বলেন, ‘ভেবেছিলাম মৌসুমের পুরোটাই খেলতে পারবো। কিন্তু আমি আর পারছি না। বিদায় বলার এটাই সঠিক সময় বলে মনে করছি। আর্জেন্টিনায় ক্যারিয়ার শেষ করার সুযোগ দেয়ায় লা প্লাটার প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।’

২০০৩ সালে রিভার প্লেটের হয়ে পেশাদার ক্যারিয়ার শুরু মাসচেরানোর।
সেখান থেকে ব্রাজিলিয়ান ক্লাব করিন্থিয়ান্স হয়ে ২০০৬ সালে পা রাখেন ইউরোপের ফুটবলে। কার্লোস তেভেজের সঙ্গে যোগ দিয়েছিলেন ওয়েস্টহ্যাম ইউনাইটেডে। খুব অল্প সময় ওয়েস্টহ্যামে কাটিয়ে ধারে নাম লেখান লিভারপুলে। ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার হিসেবে লিভারপুলে থিতু হন। সেখানেই নিজেকে পরিণত করেন বিশ্বের অন্যতম সেরা ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডারদের একজন হিসেবে।

২০১০ সালে ক্যারিয়ারে বাঁকবদল। বার্সেলোনায় নাম লেখান তিনি। ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার থেকে দলের প্রয়োজনে হয়ে যান সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার। নতুন পজিশনেও আলো ছড়ান। তবে জাতীয় দলে ক্যারিয়ারের পুরোটা সময় জুড়েই খেলেছেন ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার হিসেবেই। বার্সেলোনার হয়ে জিতেছেন পাঁচটি করে লা লিগা ও কোপা দেল রে। দুটি চ্যাম্পিয়নস লীগ শিরোপাও জিতেছেন কাতালানদের হয়ে।

আর্জেন্টিনার জার্সিতে খেলেছেন সবচেয়ে বেশি ১৪৭ ম্যাচ। একমাত্র আর্জেন্টাইন হিসেবে ২০০৪ ও ২০০৮ সালে জেতেন অলিম্পিক স্বর্ণপদক। ২০১৪ বিশ্বকাপে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে আর্জেন্টিনাকে তোলেন ফাইনালে। তবে জেতা হয়নি বিশ্বকাপ। আর্জেন্টিনার জার্সিতে জেতা হয়নি কোনো ট্রফি। চারবার কোপা আমেরিকা ফাইনাল খেলেও ছোঁয়া হয়নি ট্রফি।

২০১৮ সালে বার্সেলোনা ছেড়ে পাড়ি জমান চীনের ক্লাব হেবেই ফরচুনে। সেখানে এক মৌসুম খেলে ফেরেন আর্জেন্টিনায়। শুরুর মতো ক্যারিয়ারের শেষটাও করলেন জন্মভূমিতেই।

1