আরেকটি বড় চ্যালেঞ্জ মেসিদের

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টি ফোর ডটকম: কোপা দেল রে’র ফাইনালে খেলার স্বপ্ন সুতোয় ঝুলছে বার্সেলোনার। শেষ চারের প্রথম লেগে সেভিয়ার মাঠে ২-০ গোলে হারে কাতালানরা। আজ বাংলাদেশ সময় রাত ২টায় ফিরতি লেগে ন্যু ক্যাম্পে সেভিয়াকে আতিথ্য দেবে বার্সা। কঠিন সেই লড়াইয়ে রোনাল্ড কোম্যানের দলকে জিততে হবে ৩-০ ব্যবধানে। সেভিয়ার বিপক্ষে ২-০ ব্যবধান ঘুচিয়ে পরের পর্বে যাওয়ার রেকর্ডও রয়েছে বার্সেলোনার। ২০১৮-১৯ কোপা দেল’রের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে ২-০তে হারের পর ফিরতি লেগে ৬-১ ব্যবধানে সেভিয়াকে উড়িয়ে দেয় কাতালানরা। সেই ম্যাচে খেলা বেশিরভাগই ক্লাব ছেড়েছেন। আছেন কেবল মেসি, পিকে, বুস্কেটস, আলবা।
সেই ম্যাচে বার্সার হয়ে এক গোল করা ইভান রাকিটিচ প্রতিপক্ষ শিবিরে। আজ ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে নামার আগে মেসিদের অনুপ্রেরণা দেবে গত শনিবারের ম্যাচটি। স্প্যানিশ লা লিগায় সেভিয়াকে তাদেরই মাঠে ২-০ গোলে হারায় বার্সেলোনা। সেভিয়াকে সেদিন দাঁড়াতেই দেননি মেসিরা। কোপা দেলরে’র সবচেয়ে সফল দল বার্সেলোনা। সবচেয়ে বেশি ৩০ শিরোপা কাতালানদের। শেষবার আসরটির শিরোপা জয় অবশ্য দুই মৌসুম আগে। কঠিন সমীকরণের আগে দারুণ ছন্দে রয়েছেন বার্সার প্রাণভোমরা লিওনেল মেসি। সব প্রতিযোগিতায় টানা আট ম্যাচে গোল করেছেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার। গত মৌসুমটা শিরোপা ছাড়াই কেটেছে বার্সেলোনার। চলমান মৌসুমে এরই মধ্যে হাতছাড়া হয়েছে স্প্যানিশ সুপার কাপ। চ্যাম্পিয়নস লীগের আশাও প্রায় শেষ হয়ে গেছে। শেষ ষোলোর প্রথম লেগে ঘরের মাঠে পিএসজির কাছে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত হয় বার্সা। শিরোপ খরা কাটাতে কাতালানরা তাকিয়ে থাকবে অধিনায়কের দিকে। মহারণের আগে দু’দলেরই রয়েছে ইনজুরির সমস্যা। সেভিয়ার দুই আর্জেন্টাইন লুকাস ওকাম্পোস ও মার্কোস আকুনার চোট রয়েছে। গত শনিবার সেভিয়ার বিপক্ষে ইনজুরিতে পড়েছেন দারুণ ছন্দে থাকা বার্সা মিডফিল্ডার পেদ্রি। সেভিয়ার সঙ্গে মুখোমুখি লড়াইয়ে বেশ এগিয়ে বার্সেলোনা। সব প্রতিযোগিতায় ৫৮বার মুখোমুখি হয়েছে দু’দল। বার্সার ৩৭ জয়ের বিপরীতে মাত্র ১০ জয় সেভিয়ার। তবে কোপা দেলরে’তে এগিয়ে সেভিয়া। আট লড়াইয়ে সেভিয়া জিতেছে ৪ ম্যাচ। বার্সেলোনার জয় ২টি। বাকি দুই ম্যাচ ড্র। পরিসংখ্যান নিয়ে ভাবনা নেই বার্সা কোচ রোনাল্ড কোম্যানের। ফাইনালে চোখ এই ডাচ কোচের। তিনি বলেন, ‘এটাই (ফাইনালে খেলা) আমাদের লক্ষ্য। আমি বিশ্বাস করি ছেলেদের সে সামর্থ্য রয়েছে। শেষ পর্যন্ত আমাদের লড়াই চালিয়ে যেতে হবে।’

1