ভারতকে হারানো বছরের সেরা মুুহূর্ত: বাবর

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টি ফোর ডটকমঃ    টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শুরুতেই ক্রিকেট বিশ্ব পেয়েছে ভারত-পাকিস্তানের দ্বৈরথের স্বাদ। বিরাট কোহলির দলকে বিশ্বকাপের মঞ্চে প্রথমবারের মতো হারিয়ে দেয় বাবর আজমরা। আর সেই মুহূর্তকেই গত বছরের সেরা স্মৃতি হিসেবে বেছে নিলেন পাকিস্তান অধিনায়ক।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে বাবর বলেন, ‘ভারতের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে জেতার মুহূর্তই সবচেয়ে বিশেষ। দল হিসেবে এর চেয়ে ভাল প্রাপ্তি আর হয় না। বহু বছর ধরে বিশ্বকাপে আমাদের বিপক্ষে জিতে আসছিল ভারত। কিন্তু এবার আর পারেনি।’

পরিসংখ্যানে পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়েই ভারত। আরব আমিরাতে বিশ্বকাপের মঞ্চেও বাবর আজমের দলের বিপক্ষে ফেভারিট মানা হচ্ছিল টিম ইন্ডিয়াকে। কিন্তু ম্যাচে পুরো বিপরীত চিত্র উপহার দেয় পাকিস্তানিরা।
ব্যাটে-বলে আলো ছড়িয়ে ১০ উইকেটের জয় তুলে নেয় তারা। বাবর বলেন, ‘এই জয়ের পর আমাদের মর্যাদা আরও বেড়ে গিয়েছে। এখনও আমাদের সেই জয় নিয়ে চর্চা হয়।’

বাবর বলেন, ‘আমি সে মূহূর্তটা ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না। আমরা অতীত রেকর্ড নিয়ে ভাবছি না। বর্তমান পারফরম্যান্স নিয়ে বেশি চিন্তিত। যেভাবে আমরা শুরু এবং শেষ করেছিলাম। যে পরিবেশ, উন্মাদনা তৈরি হয়েছিল তা এক কথায় অসাধারণ। সমর্থকদের প্রতিক্রিয়াও ছিল অনবদ্য।’

বিশ্বমঞ্চে মোট ১২টি ম্যাচ হলেও কোনো ফরম্যাটেই ভারতকে হারাতে পারেনি পাকিস্তান। বাবর বলেন, ‘ভারতের বিরুদ্ধে ওই ম্যাচের আগে বিশ্বকাপে আমাদের দেশ কোনও জয় নেই। সৃষ্টিকর্তা আমাদের সহায়তা করেছেন, সে পরিসংখ্যান বদলাতে। এটা দলগত ব্যাপার ছিল। আমাদের নিজেদের প্রতি আস্থা ছিল। শুরু নয় বরং আপনি কিভাবে শেষ করছেন, সেটা গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যেভাবে বছরটা শেষ করেছি তা খুব উল্লেখযোগ্য। প্রতি ম্যাচেই আমাদের আলাদা আলাদা ম্যাচের সেরা হওয়ার যোগ্য ক্রিকেটার ছিল। হার থেকে আমরা শিক্ষা নিয়ে প্রতিদিন উন্নতি করার চেষ্টা করছি।’

তরুণদের পারফরম্যান্সেও খুশি বাবর। তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশ থেকে যে তরুণরা উঠে আসছে, সেটাই সাফল্যের অন্যতম কারণ। এ ভাবেই ক্রিকেটে একটি দেশ উন্নতি করে। আশা করি, পাকিস্তানও করবে।’
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপজুড়ে অপ্রতিরোধ্য ছিল পাকিস্তান ক্রিকেট দল। সুপার টুয়েলভের সবকটি ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালে উঠেছিল পাকিস্তান। ধারণা করা হয়েছিল এবারের ট্রফি হয়তো পাকিস্তানের হাতেই উঠবে। তবে সেই পাকিস্তানকে সেমিফাইনালে থামায় অস্ট্রেলিয়া।

শাহীনের ওভারে ওয়েডের ক্যাচ মিস করেন হাসান আলী। পরের তিন বলে তিন ছয় হাঁকিয়ে ম্যাচের মোড়ই ঘুরিয়ে দিয়ে নায়ক বলে যান ওয়েড। বাবরের কাছে সবচেয়ে কষ্টের মুহূর্ত ছিল এটিই। তিনি বলেন, ‘গত বছর সবচেয়ে বেশি কষ্ট পেয়েছি ওই হারে। কারণ, দল হিসেবে আমরা এত ভালো খেলছিলাম। বিশ্বকাপে আমরা যে ছন্দে ছিলাম, সেখান থেকে শিরোপা জয় উচিত ছিল।’

1