বনের হাতি বনে চলে যাবে–সেলিনা হয়াৎ আইভী

2

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টি ফোর ডটকমঃ  নির্বাচনের মাঠে প্রতিটা মুহূর্ত চ্যালেঞ্জিং বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হয়াৎ আইভী।

আইভী বলেন, আমি জনগণের কাছে গিয়ে ভোট চাচ্ছি। সাধারণ মানুষের কাছে গিয়ে তাদের সঙ্গে কথা বলা, মন জয় করা এবং তাদের কাছ থেকে ভোট আনা অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং একটি বিষয়।

বুধবার সকালে নগরীর ১৫ নম্বর ওয়ার্ড কিন্ডার কেয়ার স্কুলের সামনে গণসংযোগ করাকালে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

আইভী বলেন, সারা বাংলাদেশ জানে আমি গরিব মানুষ। গরিব বলতে আমার অর্থনৈতিক অবস্থা, আমি খুবই সাধারণ জীবনযাপন করি। এই বিষয়টি আমার শত্রুপক্ষও যেমন জানে তেমিন আমার কাকা তৈমূর আলম খন্দকারও জানেন। আমি জীবনে কখনোই টাকার রাজনীতি করি নাই এবং ভবিষ্যতেও করবো না। সুতরাং নির্বাচনী মাঠে টাকা কেত্থেকে ছড়াচ্ছে এটা নিয়ে আমার প্রশ্ন প্রশাসনের কাছে।

নির্বাচনের পরিবেশ অনেক ভালো আছে জানিয়ে আওয়ামী লীগ সমর্থিত এই মেয়র প্রার্থী বলেন, বর্তমান যে পরিবেশ বিরাজ করছে তা আগামী ১৬ জানুয়ারি পর্যন্ত থাকবে। সুষ্ঠু ও স্বাভাবিভাবে যেন সবাই উৎসবমুখর পরিবেশে নিজের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন, সেই ব্যবস্থাই প্রশাসন করবে। এমন আশা ব্যক্ত করেন তিনি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আইভী বলেন, নগরীর পরিবেশ ঠিক রাখার জন্য যদি কোনো মাদক ব্যবসায়ী, কোনো জঙ্গি অথবা কিশোর গ্যাং সদস্যদের পুলিশ ধরে নিয়ে যায় সেটা সঠিক কাজ করেছে তারা। এর বাইরে আর কাকে ধরে নিয়ে গেছে সেটা আমি জানি না। বর্তমানে আমি নির্বাচনী কাজে ভোটের মাঠে অবস্থান করছি।

সেলিনা হায়াৎ আইভী নির্বাচনে সুন্দর, সুষ্ঠু ও উৎসবমুখর পরিবশে রাখার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহীনির প্রতি আহ্বান জানান। এছাড়াও নির্বাচনী মাঠে টাকার ছড়াছড়ি হচ্ছে, এমন সংবাদও পেয়েছেন জানিয়ে এই মেয়র প্রার্থী বলেন, এই টাকার ছড়াছড়ি বন্ধ করতে হবে প্রশাসনকেই।

তৈমূর আলমের সঙ্গে বহিরাগত রয়েছেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে আইভী বলেন, সন্ত্রাসী যে কারো সঙ্গেই থাকতে পারে। সন্ত্রাসীদের কোনো দল নাই, ধর্ম ও জাতও নেই তাদের। এই শহরেতো চিহ্নিত সন্ত্রাসীরাও আছে। যারা কিশোর গ্যাংয়ের লিডার, যারা মাদক বিক্রেতা ও হোন্ডাবাহীনিদেরও লিডার।

আইভী বলেন, আমি কোনো নেতাকে ইঙ্গিত করে বলছি না। এমন চাওয়া আমার সব সময়ই ছিল, শহরের পরিবেশ যেন সুন্দর থাকে, কেউ যেন কাউকে ভয় দেখাতে না পারে, যেকোন বিশৃঙ্খল ঘটনা ছাড়া নির্বাচনটা যাতে সুন্দর ও সুষ্ঠু হয়। আমি পুনরায় বলতে চাই সন্ত্রাসী বা অপরাধী কোনো দলের কিংবা কোনো গোষ্ঠীর হতে পারে না। কেননা সে নিজের স্বার্থেই কাজ করে, দল কিংবা গোষ্ঠী অথবা সমাজের জন্য কিছুই করে না।

২০১১ সালে নারায়ণগঞ্জে খুবই সুন্দর একটা নির্বাচন হয়েছিল জানিয়ে আইভী বলেন, বাংলাদেশ সরকার খুবই সুন্দর নির্বাচন করেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছিল। ওই সময় সুষ্ঠু নির্বাচন না হলে কিংবা প্রশাসন সেই ব্যাপারে সহযোগিতা না করলে ২০১১-তে আমি মেয়র নির্বাচিত হতে পারতাম না। ২০১৬-তে আমি নির্বাচন করেছি অ্যাডভোকেট শাখাওয়াত হোসেন খানের সঙ্গে, অসম্ভব সুন্দর পরিবেশ ছিল। ওই নির্বাচনেও মানুষ উৎসবমুখর পরিবেশে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। ঠিক তদ্রুপভাবে ১৬ জানুয়ারি উৎসব মুখর পরিবেশে সাধারণ মানুষ ভোট দেবে।

তৈমূর আলম খন্দকারকে উদ্দেশ করে আইভী বলেন, বনের হাতি বনে চলে যাবে, শহরে থাকে না, হাতিতো জঙ্গলে থাকে। বনের হাতি বনে যাবে নৌকা মার্কা জিতে যাবে।

2