আন্দ্রে ‘মাসলম্যান’ রাসেল!

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টিফোর ডকটমঃ কলকাতা তখন হারের দুয়ারে। ১৮ বলে দরকার ৫৩ রান। বেঙ্গালুরু অধিনায়ক বিরাট কোহলি টানা চার ম্যাচ হারের বৃত্ত ভাঙার অপেক্ষায়। কিন্তু কোহলির হাসি কেড়ে নিলেন আন্দ্রে রাসেল। ১৩ বলে ১ বাউন্ডারি ৭ ছক্কায় ৪৮ রানের অবিশ্বাস্য ঝড়! তাতে কঠিন সমীকরণ মিলে গেল ৫ বল বাকি থাকতেই। বেঙ্গালুরুর ২০৫ রানের পাহাড় টপকে কলকাতার জয় ৫ উইকেটে। এমন তাণ্ডব দেখে কোহলি, ডি ভিলিয়ার্সও পিঠ চাপড়ে দিয়েছেন আন্দ্রে রাসেলের। আইপিএলে পাওয়ার হিটিংয়ের অনন্য নজির গড়া এই ক্যারিবিয়ানের প্রশংসায় মেতেছে পুরো ক্রিকেটবিশ্ব। কিংবদন্তি ব্রায়ান লারা ম্যাচ শেষের কিছুক্ষণ পরই করেছেন টুইট। বিশ্বকাপ সামনে রেখে লিখেছেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিশ্বকাপ দল (একাদশ) ঘোষণা করলাম। রাসেলের সঙ্গে যেকোনো দশজন।’

রান তাড়া করতে নেমে ১৭ ওভার শেষে কলকাতা করেছিল ৫ উইকেটে ১৫৩। মার্কাস স্টোইনিসের ১৮তম ওভারে দুটি ছক্কা মেরেছিলেন রাসেল। শেষ ১২ বলে জয়ের জন্য দরকার ৩০ রান। এরপর টিম সাউদির করা ১৯তম ওভারে রীতিমতো তাণ্ডব। দ্বিতীয় বলে স্ট্রাইক পাওয়ার পর রাসেলের স্কোরিং শট ৬, ৬, ৬, ৪, ৬! যেকোনো লাইন, লেংথের একটাই ঠিকানা—সীমানার ওপার। তাতে টানা পাঁচ হারের লজ্জা নিয়ে শুকনো মুখে মাঠ ছাড়েন কোহলিরা। জয়ের নায়ক রাসেল জানালেন, ‘কোনো মাঠই আমার কাছে বড় নয়। আমি ব্যাট করি নিজের শক্তির ওপর আস্থা রেখে।’ মাঠে নামার পর প্রথম বল থেকেই চালিয়ে খেলা নিয়ে তাঁর ব্যাখ্যা, ‘ডিকে (দীনেশ কার্তিক) বলেছিল কয়েকটা বল দেখে খেলতে। কিন্তু ২০ বলে ৬৮ দরকার হলে বল দেখার সময় থাকে না। ডাগআউটে বসে বুঝে গিয়েছিলাম পিচটা কেমন।’

এবারের আইপিএলে রাসেলের চারটা ইনিংস হায়দরাবাদের বিপক্ষে ১৯ বলে ৪৯*, পাঞ্জাবের সঙ্গে ১৭ বলে ৪৮, দিল্লির বিপক্ষে ২৮ বলে ৬২ ও বেঙ্গালুরুর সঙ্গে ১৩ বলে ৪৮*। এর রহস্যটা জানালেন তিনি, ‘টি-টোয়েন্টিতে কখনো হাল ছাড়ি না। বড় শটের জন্য চোখের সঙ্গে হাত চলাটা জরুরি। বাকিটা বলতে পারছি না, করে দেখাতে হবে!’ কলকাতার মালিক শাহরুখ খান ‘মাসলম্যান’ বলে উল্লেখ করেছেন রাসেলকে। ম্যাচ শেষে তাঁর উচ্ছ্বাস, ‘যাঁরা ভেবেছিলেন ম্যাচ আমাদের হাত ফসকে গেছে, তাঁরা হয়তো ক্রিকেট বোঝেন, কিন্তু রাসেলকে চেনেন না। অসাধারণ মাসলম্যান, এবার উৎসব করা যাক।’ টানা পাঁচ হারে কোহলির হতাশা, ‘শেষ চার ওভারে আমরা যেভাবে বল করেছি, আমাদের হার পাওনাই ছিল।

1