৩৯ বছরের রেকর্ড ভাঙলেন কনওয়ে

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টি ফোর ডটকম: বিশ্বের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে দুদিন আগে ইংল্যান্ডের মাটিতে অভিষেক টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরির কীর্তি গড়েন ডেভন কনওয়ে। এবার তিনি ভেঙে দিলেন ৩৯ বছরের পুরনো এক রেকর্ড। গতকাল লর্ডসে নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যক্তিগত ২৩ রানে আউট হন কিউই ওপেনার। এতে ভেঙে যায় প্রোটিয়া গ্রেট ব্যাটসম্যান কেপলার ওয়েসেলসের রেকর্ড। ইংল্যান্ডের মাটিতে অভিষেক টেস্টে ওপেনার হিসেবে দুই ইনিংস মিলিয়ে সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ডটি এখন কনওয়ের।
১৯৮২ সালে টেস্ট অভিষেক হয় দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক কেপলার ওয়েসেলসের। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সেই ম্যাচে তিনি খেলেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার হয়ে। বর্ণবাদের কারণে তার দেশ দক্ষিণ আফ্রিকা তখন ক্রিকেট ও অন্য সব খেলা থেকে নির্বাসিত। পরে অবশ্য ১৯৯১ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় ফিরে আসার পর প্রোটিয়াদের অধিনায়কত্বও করেছেন কেপলার ওয়েসেলস।
অভিষেক টেস্টের দুই ইনিংসে ১৬২ ও ৪৬ রান করেন ওয়েসেলস।
দুই ইনিংস মিলিয়ে ২০৮। এত দিন এটাই ছিল অভিষেক টেস্টে কোনো ওপেনারের সর্বোচ্চ রান। ১৯৮৭ সালে টেস্ট অভিষেকেই ডাবল সেঞ্চুরি করেন শ্রীলঙ্কার ব্রেন্ডন কুরুপ্পু । নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংস ঘোষণা করার সময় ২০১ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করার সুযোগই পাননি। পঞ্চম দিনে গড়ানো ম্যাচটি ড্র হয়। অভিষেক টেস্টের সর্বোচ্চ রান করার তালিকায় কনওয়ের অবস্থান পঞ্চম। ৩১৪ রান নিয়ে এ তালিকার শীর্ষে আছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তি ক্রিকেটার লরেন্স রো। ১৯৭২ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে কিংস্টনে প্রথম ইনিংসে ডাবল সেঞ্চুরি (২১৪) আর দ্বিতীয় ইনিংসে অপরাজিত সেঞ্চুরি করেন। ১৯৬৮-৬৯ তে জ্যামাইকার জার্সিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় এই কিংবদন্তি খেলোয়াড়ের। তালিকার দ্বিতীয় স্থানে ইংল্যান্ডের রেজিল্যান্ড আরস্কিন ফস্টার, তৃতীয় স্থানে পাকিস্তানের ইয়াসির হামিদ ও চতুর্থ স্থানে রয়েছে কাইল মেয়ার্সের নাম। বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে অভিষেক টেস্টে সেঞ্চুরির রেকর্ড রয়েছে তিন জনের। ২০০০ সালে ভারতের বিপক্ষে অভিষেক টেস্টের দুই ইনিংসে আমিনুল ইসলাম করেন ১৪৫ ও ৬। অভিষেক টেস্টে ২০০১ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২৬ ও ১১৪ রান করেন মোহাম্মদ আশরাফুল। এছাড়া ২০১১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অভিষেক হয় আবুল হাসান রাজুর। তিনি প্রথম ইনিংসে ১১৩ রান করার পর দ্বিতীয় ইনিংসে করেন ৭ রান।
লর্ডস টেস্টের তৃতীয় দিনের পুরোটাই ভেসে যায় বৃষ্টিতে। আর শেষ দিনে ম্যাচে রোমাঞ্চ ফেরে নিউজিল্যান্ড ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৯ রানে ইনিংস ঘোষণা করলে। এতে দিনের বাকি ৭৫ ওভারে ইংল্যান্ডের টার্গেট দাঁড়ায় ২৭৩ রানে। আর ২৫ ওভার শেষে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ছিল ৪৯/১।

1