ঔপনিবেশিক ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়ন ও সংশোধনের পদক্ষেপ একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টি ফোর ডটকমঃ ঔপনিবেশিক আমলের নিপীড়নমূলক ভাবধারা সম্বলিত ১৮৯৮ সালের ফৌজদারি কার্যবিধি (দ্য কোড অব ক্রিমিনাল প্রসিডিউর ১৮৯৮) যুগোপযোগী, আধুনিকায়ন ও বাংলা ভাষায় প্রণয়ন করার পদক্ষেপকে সাধুবাদ জানিয়েছে অদলীয় রাজনীতি সামাজিক মঞ্চ।

মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১ তারিখে মঞ্চের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, স্বাধীন দেশে ঔপনিবেশিক আমলের আইন বলবৎ থাকা শুধু লজ্জারই নয় স্বাধীনতা সংগ্রাম ও সশস্ত্র যুদ্ধে আত্মাহুতি দানকারী শহীদদের প্রতি অবমাননাকর। এই সকল ঔপনিবেশিক আইন স্বাধীন বাংলাদেশকে এক ধরণের পরাধীনতায় (অভ্যন্তরীণ পরাধীনতা) আবদ্ধ করে রেখেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, পেনাল কোড, পুলিশ প্রবিধানসহ দেশে প্রচলিত ঔপনিবেশিক আমলের নিপীড়নমূলক সকল আইন পরিবর্তন করতে হবে। তবে, শুধুমাত্র আইন পরিবর্তন করলেই হবে না ঔপনিবেশিক আমলের নিপীড়নমূলক ভাবধারা সম্বলিত রাষ্ট্রীয় কাঠামো ও শাসনব্যবস্থাকেও ঔপনিবেশিকতা মুক্ত করা জরুরি।

বিবৃতি আরো বলা হয়, এককক্ষ বিশিষ্ট জাতীয় সংসদ, এককেন্দ্রিক রাষ্ট্রীয় কাঠামো পরিবর্তনের মাধ্যমে শাসনব্যবস্থাকে ঔপনিবেশিকতা মুক্ত করতে হবে। রাজনৈতিক দলের পাশাপাশি অদলীয় শ্রম-কর্ম-পেশার ব্যক্তি ও সংগঠনের অধিকার, ক্ষমতা ও কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে স্বাধীন দেশ উপযোগী রাষ্ট্রীয় কাঠামো ও শাসনব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন অদলীয় রাজনৈতিক সামাজিক মঞ্চের প্রধান সমন্বয়ক সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক হুমায়ুন কবির হিরু, ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের অন্যতম সংগঠক ও প্রকাশক মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ, শ্রমিক নেতা মোঃ মোশারফ হোসেন, তৃতীয় চতুর্থ শ্রেণীর সরকারি কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের সহ-সভাপতি এম এ আউয়াল, সামাজিক শক্তির সাধারণ সম্পাদক মোশারেফ হোসেন মন্টু, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক নাভা মেহজাবিন রহমান, সংস্কৃতি কর্মী সাকিল সৈকত, ইঞ্জিনিয়ার রায়হান তানভীর, ব্যারিস্টার গোলাম আইয়ুব অভ্র, অয়ন আমান।

1