শ্রমিক-কর্মচারী অধিকার আদায় কমিটির উদ্যোগে জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি প্রদান

1

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টি ফোর ডটকমঃ ওপ্রেক্স গ্রুপ-সিনহা গার্মেন্টস শ্রমিক-কর্মচারী অধিকার আদায় কমিটির উদ্যোগে কারখানা বন্ধের প্রতিবাদ ও শ্রম আইন অনুযায়ী প্রাপ্য পাওনা পরিশোধের দাবীতে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় হাজার শ্রমিকের উপস্থিতিতে বিক্ষোভ মিছিল নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এসে সমাবেশে মিলিত হয়। অতপর জেলা প্রশাসকের পক্ষে এনডিসি মেহেদী হাসান ফারুক স্বয়ং শহীদ মিনারে এসে তিন দফা স্মারক লিপি গ্রহণ করেন। এসময় তিনি বলেন, স্মারকলিপি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হবে।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ টেক্সটাইল গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শ্রমিক নেতা এড. মাহবুবুর রহমান ইসমাইল, গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক জলি তালকুদার, গার্মেন্টস শ্রমিক মুক্তি আন্দোলনের সভাপতি শবনম হাফিজ, গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারি ফেডারেশনের সভাপতি মাসুদ রেজা, ওপ্রেক্স গ্রুপ-সিনহা গার্মেন্টস শ্রমিক-কর্মচারী অধিকার আদায় কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ আলী, সাধারণ সম্পাদক স্বপ্না আক্তার, দফতার সম্পাদক শহীদুল ইসলাম, সদস্য আনিছ আহমেদ, হালিমা বেগম, ইকরাম হোসেন, মাইদুল ইসলাম।
সমাবেশে এড. মাহবুবুর রহমান ইসমাইল বলেন, দেশের অন্যতম বৃহৎ সিনহা গার্মেন্টস ১২ হাজার শ্রমিকের পাওনা বেতন নিয়ে ঘোরাঘুরি করিলে শ্রমিকদের দাবী ও আন্দোলনের প্রেক্ষিতে ৩ অক্টোবর শ্রম প্রতিমন্ত্রীর উপস্থিতিতে সমঝোতা চুক্তি হয়। এরই মধ্যে মালিক কর্তৃপক্ষ গত ১৯ অক্টোবর কারখানাটি ২৮ এর (ক) ধারায় বন্ধ ঘোষণা করে। এই আইনে ৩০ দিনের মধ্যে সার্ভিস বেনিফিটসহ সকল পাওনাদি পরিশোধের বাধ্য বাধকতা থাকলেও মালিক কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধ করছে না। যার কারণে শ্রমিকেরা দিশেহারা হয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছে। সিনহা গার্মেন্টেসের এই ঘটনা প্রমাণ করে মালিক আইন ভঙ্গ করলে তার কোনো শাস্তি হয় না। এড. ইসমাইল শ্রমিকদের সকল পাওনা পরিশোধ করার জন্য মালিক কর্তৃপক্ষের প্রতি দাবী জানান। সমাবেশে শ্রমিক নেতারা বলেন, ৭ দিনের মধ্যে যদি সকল শ্রমিকের বেতন পরিশোধ করা না হয়, তাহলে সারাদেশে এই আন্দোলন ছড়িয়ে পরবে।

1