পূর্বে বন্দরে বিএনপির নেতৃত্বে যারা ছিলো তারা জাতীয় বেঈমান – আবু আল ইউসুফ খান টিপু

0

ডেইলি নারায়ণগঞ্জ টুয়েন্টি ফোর ডটকমঃ   নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির আহবায়ক এড,সাখাওয়াত হোসেন খান বলেছেন বিএনপি কোনো নেতা নির্ভর দল নয়, কর্মী সমর্থক নির্ভর দল। এই দলে লক্ষ কোটি কর্মী সমর্থক রয়েছে। আজকে সারা বাংলাদেশে নেতাকর্মীরা জেগে উঠেছে। এই বন্দরের নেতাকর্মীরাও জেগে উঠেছে। এখন শুধু ডাকের অপেক্ষায় আছে। শনিবার (২৯অক্টোবর) বিকাল সাড়ে তিন টায় বন্দরের লক্ষন খোলা ৪৩ নং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে বন্দর থানা বিএনপি উদ্দ্যেগে আয়োজিত কর্মী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর কমিটি দেওয়া হয়েছে কোনো পরিবারের কাউকে দেওয়া হয় নাই। যারা রাজপথ থেকে উঠে এসেছে, সেই রাজপথের কর্মী সর্মথকদের পক্ষ থেকে আজকে যাদের কমিটি দেওয়া হয়েছে তারা। সাখাওয়াত বলেন সদস্য সচিব টিপু বলেছে সাখাওয়াত, টিপুর বিএনপি করতে চাই না, আমরা বিএনপি করবো শহিদ জিয়া ও তারুণ্যের অহংকার তারেক রহমানের বিএনপি। লন্ডন থেকে তারেক জিয়া এ কমিটি দিয়েছে। এ কমিটি কোন দিন আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি মার্কা হতে পারেনা। এ কমিটিতে স্হান হবে যারা পূর্বে বিএনপি করেছে এবং রাজপথে মিটিং মিছিল করে মামলা খেয়েছে ত্যাগ স্বীকার করেছে তাদেরকে এখানে স্হান দেওয়া হবে। এই কমিটি তারেক জিয়ার কমিটি ত্যাগি ও পরিক্ষিত নেতাকর্মীদের সুসংগঠিত করে এই সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে এবং শেখ হাসিনার সরকার কে মসনদ থেকে টেনে হিছরে নামানোর জন্য বেগম খালেদা জিয়া কে বন্দী করে রাখা হয়েছে, তাকে মুক্ত ও তারেক রহমানের হাত কে শক্তিশালী করতে । নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব এড,আবু আল ইউসুফ খান টিপু প্রধান বক্তার বক্তব্যে বলেন আজকে আমরা বন্দরবাসীকে মেসেজ দিতে এসেছি বন্দরের ৯টি ওয়ার্ড, ৮টি ইউনিয়ন ও থানা কমিটি স্ব স্ব এলাকায় গিয়ে কর্মী সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি উপহার দিতে চাই। কি কমিটি উপহার দিতে চাই আপনারা কি কমিটি চান আপনারা কি সেলিম ওসমান, শামীম ওসমান বিএনপি কমিটি চান, না কি খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়ার কমিটি চান, না কি লাঙ্গল মার্কা কমিটি চান কোনটা চান। অতিতে বন্দরে বিএনপির নেতৃত্বে ছিলো তারা জাতীয় বেঈমান। ২০১৮ সালের ৩০শে ডিসেম্বর এর নির্বাচনে বিএনপির পুলিং এজেন্ট ও নেতাকর্মীদের ভোট কেন্দ্র থেকে টেনে হিচরে বের করে দিয়ে তথাকথিত বিএনপির নেতাকর্মী লাঙ্গল মার্কায় ভোট দিয়ে ছিলো তারা কি বিএনপি হতে পারে। আজকের আহবায়ক কমিটির নেতৃবৃন্দ তারেক রহমানের কাছে প্রতিঙ্গাবদ্ধ করেছি আমরা কোন ভাই বোন আত্বিয় স্বজন কে এ কমিটিতে ঠাই দেবোনা। আল্লাহর কসম করে বলছি এ লক্ষল খোলা মাঠে বন্দরবাসীকে আশ্বস্ত করতে চাই বন্দর থানা, ওয়ার্ত কোনো একটি কমিটির পদপদবি বিক্রি করা চলবে না। আমরা সহ কেউ যদি করি তাহলে আমাদের মা-বাবার রক্ত খাই। সেটা যে কেউ করুক আপনারা প্রতিবাদ করবেন এবং তথ্যপ্রমান সহ হাজির করবেন আমরা ব্যবস্হা নেবো। আপনাদের মতামতের ভিত্তিতে কমিটি দিতে চাই। সেই কমিটি সুসংগঠিত করে গনতন্ত্র উদ্ধার, ভাতের অধিকার, এবং শেখ হাসিনার সরকারের কারাগার থেকে খালেদা জিয়া কে রাজপথে নিয়ে আসবো। আর তারেক রহমানের হাত কে শক্তিশালী করতে। এসময় বিএনপি নেতা নুর মোহাম্মদ পনেস এর সভাপতিত্বে ও নাজমুল হাসান রানার সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মহানগর বিএনপির যুগ্ন আহবায়ক এড,সরকার হুৃমায়ুন কবির, মনির হোশেন খান,আনোয়ার হোসেন আনু,ফাতেহ মোঃ রেজা রিপন, কার্য্যকরী সদস্য ডাঃ মজিবুর রহমান, মাসুদ রানা,মাহমুদুল ইসলাম, শাহীন আহমেদ, ফারুক হোসেন,মোঃ সাউদ চুন্নু, বন্দরথানা কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম হিরন, শ্রমিকদলের আহবায়ক এস এম সালাম, তাতী দলের সাধারন সম্পমাদক ইকবাল হোসেন, হিলা দলের আহবায়ক দিলারা মাসুদ ময়না, বন্দর থানা ছাত্রদলের আহবায়ক রাহিদ ইশতিয়াক সিদ্দিক। এছাড়াও আরও উপস্হিতি ছিলেন মোহাম্মদ বাবু,সোহেল আহম্মেদ, নাসির উল্লাহ টিপু,সলিম উল্লাহ বাবুল,ফিরোজ, জিল্লুর রহমান, মশিউর রহমান, মোঃ দুলাল হোসেন, জনি প্রমূখ।

0